এক টাকার আর্টিস্ট শুভ : বেনেগাল

ভালোবাসার কোন চোখ থাকে না, ভালোবাসা অন্ধ হয়। বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী আরিফিন শুভ বলেন, আমি ‘বঙ্গবন্ধু’ বায়োপিকের কাজটা করতে গিয়ে, বঙ্গবন্ধুর সম্পর্কে গবেষণা করেছি, ওনাকে জানতে, ওনার দর্শন বুঝতে গিয়ে আমি বঙ্গবন্ধুর প্রেমে পড়ে গেছি। আর এই প্রেম থেকেই কাজটা করছি। সুতরাং প্রত্যেকটা শট, প্রত্যেকটা মূহুর্ত আমার কাছে কল্পনার মতোই মনে হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু’ বায়োপিকে এই জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী অভিনয় করছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চরিত্রে। ভারত ও বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত হচ্ছে বড় বাজেটের ছবিটি। স্বভবতই প্রশ্ন মনে হতে পারে এই ছবিতে পারিশ্রমিক হিসাবে কতো টাকা নিয়েছেন জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী ? এই বিষয়টি এবার সকলের সামনে তুলে ধরেছেন এই অভিনেতা।

‘বঙ্গবন্ধু’ বায়োপিকের জন্য অরিভিন শুভ পারিশ্রমিক হিসেবে নিয়েছেন মাত্র ০১ (এক) টাকা! ৯ই জুন (বুধবার) শুভ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করেছেন পারিশ্রমিকের সেই ব্যাংক চেক। ছবির ক্যাপশন হিসেবে তিনি লিখেছেন, শর্ত একটাই, সম্মানি হিসেবে নেব মাত্র ১ টাকা। অর্থ দিয়ে আত্মার তৃপ্তি মিলবে না, শুধুমাত্র পার্থিব কিছু সুখ ছাড়া।

শর্ত একটাই, সম্মানি নেব এক টাকা ‘অর্থ দিয়ে হয়তো পার্থিব কিছু সুখ পাওয়া যাবে, কিন্তু আত্মার তৃপ্তি মিলবে না

#Bangabandhu

Posted by Arifin Shuvoo on Tuesday, June 8, 2021

২০১৯ সালের ৬ ফেব্রুয়ারি বঙ্গবন্ধু বায়োপিকে অভিনয়ের আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব পান আরিফিন শুভ। তার আগে হয় পাঁচ দফা অডিশন। দুইবার অডিশন হয় ভারতে এবং তিনবার হয় বাংলাদেশে। আনুষ্ঠানিকভাবে চূড়ান্ত করার দিন তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, তার কোনো শর্ত আছে কি না? তখন তিনি বলেন- শর্ত একটাই, সম্মানি নেব এক টাকা। শুভর জবাব শুনে তাঁরা মুগ্ধ। পরিচালক শ্যাম বেনেগাল তাঁর উপাধিই দিয়ে দিল ‘এক টাকার আর্টিস্ট’। এটা তাঁর জীবনের অন্য রকম এক স্বীকৃতি বলে মনে করেন, আরিফিন শুভ।

আরও পড়ুন: মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ১৬ অনুপ্রবেশকারীকে আটক করেছে বিজিবি

শুভ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, শুনেছি বঙ্গবন্ধু তাঁর জীবনের ১১ বছর ৪ মাস ২২ দিন কারাগারে মধ্যে কাটিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুর চরিত্রের প্রধান বৈশিষ্ট্য হল স্যাক্রিফাইস। জীবদ্দশায় কেবল ত্যাগই করে গেছেন তিনি মানুষ ও দেশের জন্য। আমার এই স্যাক্রিফাইস, বঙ্গবন্ধুর সাহস ও স্যাক্রিফাইসের কাছে কিছুই না। আমার মনে হয়েছে, এই সামান্য স্যাক্রিফাইসের দ্বারা বঙ্গবন্ধুর চরিত্রের গভীরতা কিছুটা হলেও উপলব্ধি করতে পারব। সেই চিন্তা থেকেই পরিচালককে বলেছিলাম, পারিশ্রমিক যাই হোক না কেনো, আমি নেব ১ টাকা। এটাও বলেছিলাম, যেহেতু আমার রক্ত, ঘাম সবই এই সিনেমায় থাকবে, পারিশ্রমিক নেবো ফ্রি কাজ করবো না। আমি এক টাকা পারিশ্রমিক নেব, তাই নিয়েছি।

শুভর ভাষায়, ‘অর্থ দিয়ে হয়তো পার্থিব কিছু সুখ পাওয়া যাবে, কিন্তু আত্মার তৃপ্তি মিলবে না, সে সুযোগ সৃষ্টিকর্তা আমাকে করে দিয়েছেন। আরো একটা বিষয় হচ্ছে, শ্যাম বেনেগালের মতো পরিচালকের সান্নিধ্য পাওয়া। এসব টাকা বিনিময়ে মাপা বোকামির সামিল। এখানে আমার কোনো প্রাপ্তির আশা নেই। আমি এবার কী করতে পারি দেখি।

ফেজবুক পেজ: এখানে দেখুন

Share now